সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি-লালন শাহ

লালন শাহ এর গান সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি- আজকের আয়োজন

সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি

 

সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি-লালন শাহ

সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি।

গৌর এসে হৃদয়ে বসে করলো আমার মন চুরি ॥

কিবা গৌর রূপ লম্পটে

ধৈর্যের ডুরি দেয় গো কেটে

লজ্জা ভয় সব যায় গো ছুটে

যখন ওই রূপ মনে করি ॥

গৌর দেখা দিয়ে ঘুমের ঘোরে

চেতন হয়ে পাই নে তারে

লুকাইল কোন শহরে

নব রূপের রসবিহারী ॥

মেঘে যেমন চাতকেরে

দেখা দিয়ে ফাঁকে ফেলে

লালন বলে তাই আমারে

করলো গৌর বরাবরই ॥

সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি-লালন শাহ

 

লালনের ঠাকুর পরিবারের সাথে সম্পর্ক

কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারের অনেকের সঙ্গে লালনের পরিচয় ছিল বলে বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া যায়। বিরাহিমপুর পরগনায় ঠাকুর পরিবারের জমিদারিতে ছিল তার বসবাস এবং ঠাকুর-জমিদারদের প্রজা ছিলেন তিনি। উনিশ শতকের শিক্ষিত সমাজে তার প্রচার ও গ্রহণযোগ্যতার পেছনে ঠাকুর পরিবার বড় ভূমিকা রাখেন।

কিন্তু এই ঠাকুরদের সঙ্গে লালনের একবার সংঘর্ষ ঘটে। তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের কুষ্টিয়ার কুমারখালির কাঙাল হরিনাথ মজুমদার গ্রামবার্তা প্রকাশিকা নামে একটি পত্রিকা প্রকাশ করতেন। এরই একটি সংখ্যায় ঠাকুর-জমিদারদের প্রজাপীড়নের সংবাদ ও তথ্য প্রকাশের সূত্র ধরে উচ্চপদস্থ ইংরেজ কর্মকর্তারা বিষয়টির তদন্তে প্রত্যক্ষ অনুসন্ধানে আসেন।

এতে করে কাঙাল হরিনাথ মজুমদারের উপর বেজায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন ঠাকুর-জমিদারেরা। তাঁকে শায়েস্তা করার উদ্দেশ্যে লাঠিয়াল পাঠালে শিষ্যদের নিয়ে লালন সশস্ত্রভাবে জমিদারের লাঠিয়ালদের মোকাবিলা করেন এবং লাঠিয়াল বাহিনী পালিয়ে যায়। এর পর থেকে কাঙাল হরিনাথকে বিভিন্নভাবে রক্ষা করেছেন লালন।

 

সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি-লালন শাহ

 

লালনের জীবদ্দশায় তার একমাত্র স্কেচটি তৈরী করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভ্রাতা জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর। লালনের মৃত্যুর বছরখানেক আগে ৫ মে ১৮৮৯ সালে পদ্মায় তার বোটে বসিয়ে তিনি এই পেন্সিল স্কেচটি করেন- যা ভারতীয় জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে। যদিও অনেকের দাবী এই স্কেচটিতে লালনের আসল চেহারা ফুটে ওঠেনি।

আরও দেখুন :

সে কি আমার কবার কথা আপন বেগে আপনি মরি-লালন শাহ

সখি সে হরি কেমন বল্‌ | নজরুল সঙ্গীত | কাজী নজরুল ইসলাম

Leave a Comment